আজ আমি আমার নারীত্ব দাবি করি

আজ, বিশ্বের বিভিন্ন অংশে, নারীদের কণ্ঠস্বর আগের চেয়ে আরও বেশি করে শোনা যাচ্ছে ।  #টাইমসআপ হোক বা #আইঅ্যামউইথহার হোক বা  #মিটু আন্দোলন,  মহিলারা  শ্রেণী, বর্ণ, আয় ও জাতি নির্বিশেষে একত্র হচ্ছে এই দুনিয়াতে তাদের স্থান দাবি করার জন্য । এবং এটা সময়ের ব্যাপার ! কম প্রতিনিধিত্ব করা, অতিরিক্ত কাজ করা, কম বেতন পাওয়া (ধরে নিলাম তারা আদৌ  মজুরি পায় !), এবং প্রায়শই বরখাস্ত হওয়া  নারীদের ধারাবাহিকভাবে এবং অত্যন্ত  অন্যায়ভাবে , পুরুষত্বের  প্রেক্ষাপটে দেখা হয়েছে।
মহিলাটি একজন মা,  একজন স্ত্রী. একজন কন্যা,  একজন বান্ধবী, মালকিন , বল-বাটার – তালিকাটি চলতেই থাকে । কিন্তু আমরা মনে করি না যে একজন মহিলাকে প্রসঙ্গতভাবে উপযুক্ত ভাবে  সংজ্ঞায়িত করা হয়। একজন মহিলা হয় |  কারণ সে বলে সে হয় তাই |
তাই, আমরা গুগলকে জিজ্ঞাসা করলাম – কি  একজন মহিলা তৈরি করে ..
এখানে দেখাচ্ছি গুগল স্বতঃপূর্ণভাবে সাহায্যকারীরূপে আমাদের জন্য কি  প্রস্তাব আনল , এই নারী দিবসে ।
আমরা যেদিকেই তাকাই , মিডিয়া বা সাহিত্যে, রাতের খাওয়ার  টেবিলে এবং আলোচনা সভার টেবিলে আলোচনার সময়ে, নারীকে দুটি মূল বিষয়ে নামিয়ে আনা হয় – পুরুষদের সন্তুষ্ট করার ক্ষমতা (৩ / ১০  অংশ উপরে গুগলে  অনুসন্ধানের  ফলাফল), এবং তাদের শরীর (৬ / ১০ অংশ উপরে গুগলে অনুসন্ধানের ফলাফল )। আমরা শুধু একটি ধারণাকেই ধরে থাকব  ” কী একটি মহিলাকে সুখী করে ” কারণ আমরা বেছে নিয়েছি এটা বিশ্বাস করার জন্য যে এটা  আসলে আমাদের খুশীর ব্যাপার , এবং বিশ্বব্যাপী লক্ষ লক্ষ পুরুষদের অনুসন্ধানের ফলে  গুগলের তৈরী স্বরোচিত প্রস্তাব নয় , যারা চেষ্টা করছে আমাদের দুর্বল জায়গাগুলি নির্ধারণ করার , আমাদের প্যান্টের মধ্যে হাত দেওয়ার একটি প্রচেষ্টা। হা!
তো এটা আমাদের কোথায় নিয়ে এল ?
আমরা রূপান্তরকামী মহিলারা,  ভারতে এবং বিশ্ব জুড়ে ৷ কী একটা মহিলাকে তৈরী করে এই দৃষ্টিকোনে আমাদের স্থান কোথায় ? বহু বছর ধরে, আমাদেরকে “পুরুষ হতে” এবং “একজন পুরুষের মত আচরণ” করতে বলা হয়েছে । এবং  আমাদের মধ্যে যারা রূপান্তর করেছি বা করছি , তারা প্রতিদিন সংগ্রাম চালিয়ে যাচ্ছি ” যথেষ্ট মহিলা ” হতে ।
তাহলে প্রশ্নটির সঠিক উত্তর কি ? কি একজন মহিলাকে  যথেষ্ট  মহিলা করে তোলে  ?
সে  করে | সে  নিজেই  নিজেকে সংজ্ঞায়িত করে |  সে যথেষ্ট, এবং নিজের মধ্যে যথেষ্ট।
আজ, আমরা আমাদের দেহে দাবি করি, তাদের থাকতে দাও তারা যেমন আছে , আমাদের আত্মায় এবং আমাদের দৈনন্দিন জীবনযাত্রায় আমাদের নারীত্বের নিজের সংজ্ঞায়  । আমাদের কাহিনী , আমাদের দৈনন্দিন সাফল্যের এবং নারীত্বের নিশ্চুপ  সংজ্ঞা শুনুন  এবং আমাদের স্থান আমাদের দিন |

মনে রাখবেন, আপনার শরীর, রঙ, আকৃতি, বয়স, বর্ণ, ধর্ম বা শ্রেণী যাই হোক না কেন  — আপনি যথেষ্ট ।
শুভ নারী দিবস !

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here